Sharing is caring!

ভারত ফেরত যাত্রীদের মধ্যে যাদের বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত কোভিড-১৯-এর দুই ডোজ বা জনসন অ্যান্ড জনসন কোম্পানির এক ডোজ টিকা দেওয়া থাকবে এখন থেকে তাদের করোনা টেস্টের সনদ লাগবে না। সোমবার (১৪ মার্চ) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের স্বাস্থ্যবিভাগে পাঠানো এক নির্দেশনায় এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্যবিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ইছুব আলী বিষয়টি জানান।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের স্বাস্থ্য বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক জাহিদুর রহমান জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও লাইন ডাইরেক্টর সিডিসি’র পরিচালক স্বাক্ষরিত একটি পত্র আমরা পেয়েছি। যা ১৪ মার্চ থেকে কার্যকর করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বেনাপোল স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত যেকোনো টিকার দুইটি ডোজ বা জনসন অ্যান্ড জনসন এর একটি ডোজ গ্রহণকারী যাত্রী ভারত থেকে ফেরত আসলে তার আরটি পিসিআরের ৭২ ঘণ্টার করোনার সনদ প্রয়োজন হবে না। তবে যারা এর আওতার বাইরে থাকবেন তাদের ৭২ ঘণ্টার করোনা টেস্টের সনদ বাধ্যতামূলক।

এদিকে, যে সমস্ত পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারতে যাচ্ছেন ওই সমস্ত যাত্রীদের যাদের বুস্টার ডোজ অর্থ্যাৎ তৃতীয় ডোজ সম্পন্ন করা আছে তাদের জন্য করোনা টেস্টের সনদ লাগবেনা।কিন্তু যে সমস্ত যাত্রীদের শরীরে উপসর্গ থাকবে তাদেরকে বাধ্যতামূলোক আইসোলেশনে থেকে করোনা টেস্ট করতে হবে। বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি রাজু আহমেদ জানান,ভারত থেকে ফিরে আসা বাংলাদেশি যাত্রী যাদের সরকার কর্তৃক অনুমোদিত করোনার দুইটি টিকার ডোজ বা জনসন এন্ড জনসন এর একটি টিকা দেওয়া আছে তাদের জন্য লাগবেনা ৭২ ঘন্টার আরটিপিসিআরের নেগেটিভ সার্টিফিকেট সনদ।যা আজ থেকে কার্যকর হয়েছে।

Sharing is caring!