Sharing is caring!

প্রয়াত হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়।বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) সকালে ভারতের কলকাতায় প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোডে নিজ বাড়িতে প্রয়াত হন তিনি।তার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ টলিউড সহ পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্র জগত। মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসতেই তাকে ঘিরে অন্তর্জালে চর্চা শুরু হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার পেজ ঘেঁটে দেখছে নেটিজেনরা।

গত ২০ মার্চ সবশেষ নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন অভিষেক। সেখানে ছুটি কাটানোর মুডে ধরা দেন তিনি। ছবিটি পোস্ট করে অভিষেক লিখেছেন, ‘একটি অলস-আরামদায়ক রোববার। সবাইকে শুভ সকাল।’এ ছাড়াও এই অভিনেতার পেজ ঘুরে দেখা যায়, হোলিতে পরিবারের সঙ্গে চুটিয়ে মজা করেছেন তিনি। শোবিজে কাজের বাইরে পুরোপুরি ঘরোয়া মানুষ ছিলেন অভিষেক। আদরের মেয়ের মাথার চুল বেঁধে দেওয়ার মধ্যেও আনন্দ খুঁজে পেতেন এই অভিনেতা।

প্রসঙ্গত, গত দু-তিন দিন ধরেই পেটের সমস্যায় ভুগছিলেন অভিষেক চ্যাটার্জি। সে অবস্থায়ই গতকাল (বুধবার) রিয়েলিটি শো-তে অংশ নেন তিনি। সেখানেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে তার।

১৯৬৪ সালের ৩০ এপ্রিল বরানগরে জন্মগ্রহণ করেন অভিষেক। বরানগর রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রম উচ্চ বিদ্যালয়ে তার পড়াশোনা শেষ করে কলকাতার শেঠ আনন্দরাম জয়পুরিয়া কলেজে স্নাতক হন তিনি। ১৯৮৬ সালে পরিচালক তরুণ মজুমদারের ছবি ‘পথভোলা’ দিয়ে সিনেমায় যাত্রা শুরু। এছাড়াও গীত সঙ্গীত, বাবা কেন চাকর, লাঠি, সুজন সখী, জয়বাবা ভোলানাথ, বাদশা, তুমি কত সুন্দর, মায়ের আর্শীবাদ, আব্বাজান, অমর প্রেম, তুফান, সুরের আকাশে, মায়ের আঁচল, বাড়িওয়ালা, আলো, দহন, মধুর মিলন সহ একাধিক ছবিতে দক্ষতার সাথে অভিনয় করেছিলেন অভিষেক। সম্প্রতি টাপুর টুপুর, মোহর, কুরুক্ষেত্র, চোখের তারা তুই, অন্দরমহল সহ বেশ কিছু টেলিফিল্মেও অভিনয় শুরু করেছিলেন এবং সেখানেও দর্শকদের মন জিতে নেন।

৯০ এর শতকে বাংলা চলচ্চিত্র জগতের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেতা ছিলেন তিনি। একসময় প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, তাপস পাল, চিরঞ্জিত চক্রবর্তীদের সাথেই একসারিতে উঠে আসতো তার নাম। প্রয়াত অভিনেতা উৎপল দত্ত, অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায়ের মতো শক্তিশালী কলাকুশলীদের সাথেও পর্দায় অভিনয় করতে দেখা গেছে অভিষেককে। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, শতাব্দী রায়, চুমকি চৌধুরীর মতো অভিনেত্রীদের সাথে অভিনয় করেছেন তিনি।

Sharing is caring!