Sharing is caring!

মুকাবালা, মুকাবালা; দিল হ্যায় ছোটা সা; জিয়া জ্বালে, জিয়া জ্বালে; বন্দে মাতরম- এসব বিখ্যাত গানের সুরকার এ আর রহমান। তার সুরারোপিত গানে মুগ্ধ গোটা বিশ্ব। শুধু সুর করেন না, গানও গান। তার সুফি গানের মূর্ছনায় রোমাঞ্চিত সংগীতপিপাসুরা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে গান গাইতে সুরকার, সংগীত পরিচালক অস্কারজয়ী এ আর রহমান এখন ঢাকায়।
রবিবার রাত সাড়ে ৯টায় প্রায় ১০০ সঙ্গী নিয়ে বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকায় আসেন। ‘ক্রিকেট সেলিব্রেটস মুজিব ১০০’ উপলক্ষে আজ সন্ধ্যায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে এ আর রহমান ৩৫টি গান গাইবেন। জমকালো অনুষ্ঠানটির আয়োজক বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এবং পৃষ্ঠপোষক দেশের শীর্ষ শিল্পপ্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ। উপমহাদেশের বিখ্যাত সংগীত পরিচালক ও সুরকার এ আর রহমান বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বাংলা ও হিন্দি ভাষায় দুটি গানের সুর ও সংগীত করেছেন। ‘বোলো জয় বঙ্গবন্ধু’ ও ‘আজও শুনি বজ্রধ্বনি’ গান দুটি তিনি গাইতে পারেন মঞ্চে। ‘বোলো জয় বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামের হিন্দি গানটির ভিডিও গত বছর স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে ১০ দিনের ‘মুজিব চিরন্তন’ অনুষ্ঠানে প্রদর্শিত হয়। ২০১৪ সালেও এ আর রহমান গান গাইতে এসেছিলেন।
সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠানের শুরুতে গান গাইবেন দেশের প্রতিষ্ঠিত ব্যান্ড ‘মাইলস’ এবং এরপর গাইবেন মমতাজ। অনুষ্ঠান সামনে রেখে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে ডিএমপি। মিরপুর ১০ নম্বর ক্রসিং থেকে সনি ক্রসিং পর্যন্ত, টিঅ্যান্ডটি ক্রসিং থেকে প্রশিকা ক্রসিং এবং মিরপুর স্টেডিয়ামের আশপাশের ফিডার রোডসমূহে যানবাহন চলাচলে অনুষ্ঠান চলাকালীন সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।
এ আর রহমানের কনসার্ট হওয়ার কথা ছিল গত বছর। কিন্তু করোনাভাইরাসের জন্য কনসার্টটি স্থগিত করেছিল বিসিবি। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ওয়ার্ল্ড ইলেভেন ও এশিয়ান ইলেভেন নামে একটি তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ আয়োজনের পরিকল্পনাও ছিল বিসিবির। তা বাতিল হয়ে যায় করোনার জন্য। এখন করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক। জনজীবনে সাবলীলতা এসেছে। তাই বিসিবি নতুন করে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করছে। অনুষ্ঠান সামনে রেখে প্রস্তুত বিসিবি। পূর্ব গ্যালারির সামনে তৈরি হয়েছে মঞ্চ। মাঠ ও গ্যালারিতে বসে প্রায় ১০ হাজার শ্রোতা গান শুনবেন এ আর রহমান, মাইলস ও মমতাজের।
অনুষ্ঠানের জন্য তিন ক্যাটাগরিতে টিকিট বিক্রি হচ্ছে। শহীদ জুয়েল ও শহীদ মুস্তাক স্ট্যান্ড- ক্লাব হাউসের টিকিটের মূল্য ১ হাজার টাকা। মাঠের টিকিটের মূল্য দুই ক্যাটাগরিতে। গোল্ড ক্যাটাগরির টিকিট ৫ হাজার আর প্লাটিনাম ক্যাটাগরির মূল্য ১০ হাজার টাকা। অনুষ্ঠান শুরু হবে সন্ধ্যা ৬টায়। সংগীতপিপাসুদের মাঠে ঢুকতে হবে বিকাল ৩টায়। ৫টায় গেট বন্ধ হয়ে যাবে।

Sharing is caring!