এনকে বার্তা ডেস্ক::

মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে । এটিই এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও দুই হাজার ৫৪৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এটিও এ পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ৪৭ হাজার ১৫৩ জন করোনা শনাক্ত হলেন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪০৬ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৭৮১ জন। ঢাকায় ২৮ জন, চট্টগ্রামে ৮ জন, খুলনায় ২ জন, রাজশাহীতে ১ জন ও রংপুরে ১ জন মারা গেছেন।

আজ রোববার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (মহাপরিচালকের দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি নতুন যুক্ত দুটিসহ মোট ৫২টি আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ হাজার ২২৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো তিন লাখ আট হাজার ৯৩০টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে আরও দুই হাজার ৫৪৫ জনের দেহে। এটি এ যাবতকালের সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। ফলে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭ হাজার ১৫৩ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে আরও ৪০ জনের। এটি এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ প্রাণহানির রেকর্ড। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৫০ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ৪০৬ জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল নয় হাজার ৭৮১ জনে।

তিনি বরাবরের মতোই করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে সবাইকে স্বাস্থ্য অধিদফতর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ-নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানান।

মৃত ৪০ জনের বয়স:

  • ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী: ৫ জন।
    ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী: ১১ জন।
    ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী: ৮ জন।
    ৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সী: ১১ জন।
    ৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী: ৪ জন।
    এক নজরে বাংলাদেশের করোনাচিত্র:
  1. মোট আক্রান্ত: ৪৭ হাজার ১৫৩ জন।
    মারা গেছেন: ৬৫০ জন।
    মোট সুস্থ: ৯ হাজার ৭৮১ জন।
    মোট নমুনা পরীক্ষা: ৩ লক্ষ ৮ হাজার ৯৩০টি।
    করোনাভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য সরকার ইতোমধ্যেই একটি বিশেষ ওয়েবসাইট (www.corona.gov.bd) চালু করেছে।

এদিকে, ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, রোববার বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা পর্যন্ত বৈশ্বিক এ মহামারিতে সারা পৃথিবীতে ৬১ লাখ ৭২ হাজার ৪৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ২৭ লাখ ৪৩ হাজার ৯১৮ জন সুস্থ হয়ে উঠলেও প্রাণ গেছে ৩ লাখ ৭১ হাজার ১৮২ জনের।

সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটেছে যেসব দেশে:

  • যুক্তরাষ্ট্র: ১ লাখ ৫ হাজার ৫৫৭ জন।
    যুক্তরাজ্য: ৩৮ হাজার ৩৭৬ জন।
    ইতালি: ৩৩ হাজার ৩৪০ জন।
    ব্রাজিল: ২৮ হাজার ৮৪৯ জন।
    ফ্রান্স: ২৮ হাজার ৭৭১ জন।
    স্পেন: ২৭ হাজার ১২৫ জন।
    মেক্সিকো: ৯ হাজার ৭৭৯ জন।
    বেলজিয়াম: ৯ হাজার ৪৫৩ জন।
    জার্মানি: ৮ হাজার ৬০০ জন।
    ইরান: ৭ হাজার ৭৩৪ জন