Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ  
নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার রামনারায়নপুর ইউনিয়নে কচি প্রকাশ কচি ফকির (৩০) নামের এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছে। স্থানীয়দের মতে মাদক কারবারিদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ আসেনি এবং কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।
রবিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ আসেনি বলে নিশ্চিত করেছেন ওসি আনোয়ারুল ইসলাম। গুলিবিদ্ধ কচি ফকির পশ্চিম রামনারায়নপুর গ্রামের দুলালের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চাটখিল উপজেলা ও লক্ষ্মীপুরের সীমান্তবর্তী রুহিতখালী গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী কচি ফকির ও ছিদ্দিক উল্যার ছেলে ছলিম প্রকাশ ছেল্লার মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় মাদক ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্ধ চলে আসছিল। রুহিতখালী গ্রামে ছলিমের একটি মাছের খামার রয়েছে। শনিবার রাতে কচি তার লোকজন নিয়ে ছলিমের মাছের খামারের ঘরে হামলা চালায় এবং ঘরটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে ছলিমের লোকজন পাল্টা কচি ও তার লোক জনের ওপর হামলা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ এবং গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে কচি গুলিবিদ্ধ হয়ে তার লোকজন নিয়ে পালিয়ে যায়।
এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, কচি ও ছলিম এলাকায় মাদকের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর রামনারায়নপুর ইউনিয়নের রুহিতখালি, মাদবপুর, খেজুরতলা বাজারের দক্ষিনাঞ্চল, পশ্চিম রামনারায়নপুর লোহার পুলের গোড়ায় ভূইয়া বাড়ির রাস্তা, আবু সায়েদ মার্কেট, ধর্মপুর সওদাগর বাড়ির সংলগ্ন দক্ষিন পাশের বাগানে মাদক কেনা বেচা হয়ে থাকে। সন্ধ্যারপর মাদকের গন্ধে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। তবে মাদক ব্যবসায়ীরা অবৈধ অস্ত্রধারী হওয়ায় তাদের ভয়ে কেউ এলাকায় মুখ খুলে না। এলাকায় পুলিশি টহল জোরদারের দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: শহিদুল ইসলাম নয়ন বলেন, রাতে সারা শরীরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক যুবক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আসে। প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গুলিবিদ্ধ কচি ফকির একজন মাদক সেবী। কচির বিরুদ্ধে থানায় কোন মামলা না থাকলেও ছলিমের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। ঘটনার পর থেকে কচি ও ছলিম পলাতক রয়েছে। তাদের আটক করতে অভিযান চলছে।

Sharing is caring!