Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

 

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় নলুয়া গ্রামে বড় ভাইয়ের ধর্ষণে ছোট বোন কিশোরী (১৫) অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। ঘটনায় অভিযুক্ত বাহার উদ্দিনকে (১৯) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে গ্রেপ্তারকৃত বাহারকে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে সে নিজের অপরাধ স্বীকার করে ১৬৪ধারায় জবানবন্দী প্রদান করে। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক শেখ মো. মহিব উল্ল্যাহ আসামীর জবানবন্দী রেকর্ড করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মা হারা কিশোরী (১৫) তার বড় বোনের সাথে বাড়ীতে থাকতো। তার বাবা ও অভিযুক্ত ভাই বাহার চট্টগ্রামের একটি ইটভাটায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো। প্রায় এক বছর আগে বড় বোনের বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর বাহার এবং ওই কিশোরী বাড়ীতে থাকতো। বাড়ীতে অন্য কেউ না থাকার সুযোগে রাতে ৫-৬মাস আগে প্রায় ৪-৫বার ইচ্ছের বিরুদ্ধে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে বাহার। লোকলজ্জার ভয়ে নির্যাতিতা বিষয়টি কাউকে বলেনি। গত ২৩মার্চ ভিকটিম বিষয়টি তার চাচীকে জানান। পরবর্তীতে তারা জানতে পারেন কিশোরী বর্তমানে ৫মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় ২৪মার্চ কিশোরীর চাচা বাদী হয়ে বাহারকে আসামী করে কবিরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

কবিরহাট থানার ওসি টমাস বড়ুয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মামলার পর থেকে অভিযুক্ত বাহার পলাতক ছিল। বৃহস্পতিবার রাতে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে বাহারকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার সকালে থানায় আনার পর সে নিজের দোষ স্বীকার করলে দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে বাহার ১৬৪ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

Sharing is caring!