শিরোনাম:
ঋণ দিতে দেরি হওয়ায় ম্যানেজারের কক্ষে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যার চেষ্টা বিয়ে ও লন্ডনের লোভ দেখিয়ে ছাত্রলীগ নেত্রীকে ধর্ষণ, মামলার খবরে দেশ ছাড়লেন ছাত্রলীগ নেতা সম্পূর্ণ হলো সোনাগাজী প্রেসক্লাব নির্বাচন বঙ্গবন্ধুর হাতের স্পর্শ পাওয়া নোয়াখালী প্রেসক্লাবের ৫২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন যুগ্ম-মহাসচিব এ্যানীর সঙ্গে নোয়াখালীতে বিএনপি নেতাকর্মিদের সৌজন্য সাক্ষাত অস্ত্র ঠেকিয়ে কিশোরীকে অপহরণ, সুধারাম থানায় মামলা বাড়ি ফেরা হলোনা আলীর, কারাগারে ঘাতক সিএনজি চালক কবিরহাটে সম্পত্তির বিরোধের জেরে হামলা, আহত ৩ নাম ধরে ডাকা নিয়ে দন্ধ, বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধু খুন মহিষ দেখতে গিয়ে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু

ঘূর্ণিঝড় আম্পান, প্রস্তুত নোয়াখালী

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

নোয়াখালী প্রতিনিধি::
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় নোয়াখালীতে ব্যাপক প্রস্তুতি গহণ করা হয়েছে। নোয়াখালী জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি প্রস্তুত রয়েছে বিভিন্ন সংস্থা।  
সোমবার দুপুরে প্রস্তুতির বিষয়টি নিশ্চিত করেন, নোয়াখালী অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইশরাত সাদমিন মিল্কি।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় জেলার হাতিয়া, সুবর্ণচর, কোম্পানীগঞ্জ, কবিরহাট উপজেলার উপকূলীয় অঞ্চলের ৩৬৪টি আশ্রয়কেন্দ্র, রেডক্রিসেন্ট কর্মীসহ ১২ হাজার স্বেচ্ছা সেবক, শুকনা খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে।
ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় রবিবার দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয় সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস জানান, জরুরী অবস্থা মোকাবেলার জন্য উপকূলীয় এলাকার সাইক্লোন সেন্টার ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর চাবি স্থানীয় প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেওয়া হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডকে উপকূলীয় অঞ্চলের বেড়িবাঁধগুলো দেখভাল করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। উপকূলীয় এলাকার করোনা আক্রান্ত রোগী এবং লকডাউনকৃত বাড়ির লোকজনকে নিকটবর্তী আইসোলেশন কেন্দ্রে নেওয়া হবে। আশ্রয়ন কেন্দ্রে তাদের জন্য বিশেষ কক্ষের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ৪নম্বর সতর্ক সংকেত চলছে, এ সংকেত ৭নং সতর্ক সংকেতে উঠলে মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হবে। এছাড়া গবাদি পশুর জন্য ৬৫টি মুজিব কিল্লা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উপকূলীয় ৩উপজেলায় নিয়ন্ত্রন কক্ষ খোলা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে উপকূলীয় এলাকায় সচেতনতামূলক মাইকিং চলছে।
হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: রেজাউল করিম বলেন, ঘূণিঝড় আম্পান এর প্রভাবে মেঘনা নদীতে অস্বাভাবিক উচু ঢেউ সৃষ্টি হয়েছে। যার কারনে সকল প্রকার নৌযান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ৪নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল থাকায় উপজেলার ২১০টি সাইক্লোন সেন্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দূর্যগ মোকাবেলা প্রস্তুত কমিটির ১৮৮টি ইউনিটকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উপজেলার সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা নিঝুমদ্বীপে এলাকাবাসীকে ঘূর্ণিঝড় আম্পান সম্পর্কে সচেতন করে মাইকিং করা হয়েছে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০