Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

 

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলা থেকে ব্র্যাক ব্যাংক এর বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটরের ১৭ লাখ ২৫হাজার টাকা ছিনতাই হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

ছিনতাইয়ের শিকার যুবকের নাম মো. ইয়াছিন বাবর (২৭) সে কবিরহাট উপজেলার চাপরাশিরহাট ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের জোনাকির পোল এলাকার মো. মফিজ উল্যার ছেলে এবং ব্র্যাক ব্যাংক বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর এস কমিনেকেশন (২) কোম্পানীগঞ্জ শাখার মার্কেটিং অফিসার।

 

বৃহস্পতিবার (৮সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে উপজেলার চাপরাশিরহাট ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মনির উদ্দিন মিয়াজী বাড়ির সামনে থেকে টাকা ছিনতাইয়ের এ ঘটনা ঘটে।

 

ছিনতাইয়ের শিকার মার্কেটিং অফিসার মো. ইয়াছিন বাবর বলেন, আমি গত আড়াই বছর যাবত ব্র্যাক ব্যাংক বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর এস কমিনেকেশন (২) কোম্পানীগঞ্জ শাখায় মার্কেটিং অফিসার হিসেবে কাজ করছি। আমি আমার ডিস্ট্রিবিউটর সেন্টার থেকে পার্শ্ববর্তী কবিরহাট উপজেলা এলাকার বাজার গুলো থেকে বিকাশের টাকা সরবরাহ এবং সংগ্রহ করে থাকি। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে কবিরহাট বাজারের বিভিন্ন দোকান থেকে বিকাশের নগদ ১৭ লাখ ২৫ হাজার টাকা সংগ্রহ করি। টাকা সংগ্রহ শেষে কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট বাজারের ডিস্ট্রিবিউটর এস কমিনেকেশন (২) কোম্পানীগঞ্জ শাখার উদ্দেশ্যে যাত্রা করি।

 

যাত্রা পথে কবিরহাট উপজেলার চাপরাশিরহাট ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মনির উদ্দিন মিয়াজী বাড়ির সামনে পৌঁছলে চারজন যুবক আমার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। একপর্যায়ে দুইজন যুবক আমাকে গালমন্দ করে মারধর শুরু করে। অপর দুইজন যুবক আমার থেকে ১৭লাখ ২৫হাজার টাকাসহ মোটরসাইকেলটি ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান।

 

ব্র্যাক ব্যাংক বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর এস কমিনেকেশন (২) কোম্পানীগঞ্জ শাখার প্রোপাইটর ইমন সাহা বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। ছিনতাইয়ের শিকার মার্কেটিং অফিসার ইয়াছিন বাবর কয়েকজন ছিনতাইকারীকে ছিনেছেন বলে জানিয়েছেন। এ ছিনতাইয়ের ঘটনাও তার এলাকায় ঘটে।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

Sharing is caring!