নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ
করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সৃষ্ট মানবিক নগদ সহায়তার তালিকায় ব্যাংকার, সরকারি চাকরিজীবী, উচ্চবিত্ত ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির নাম থাকায় নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় সৈয়দ মাহমুদ হোসেন তরুণে শোকজ করা হয়েছে। একই সাথে আগামী তিন দিনের মধ্যে শোকজের লিখিত জবাব দিতেও বলা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. দিদারুল আলম।
জানা গেছে, পাঁচগাও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়্যারম্যান ও চাটখিল উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাহমুদ হোসেন তরুণ সরকারের মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের আওতায় উপকারভোগীদের নামের সঙ্গে স্বজনপ্রীতি করে ব্যাংকার, চাকরিজীবী, উচ্চবিত্ত ও জনপ্রতিনিধিদের নাম তালিকা অর্ন্তভূক্ত করেছেন। পরে তিনি ওই তালিকা সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ের জমা দেন। পরবর্তীতে তালিকা যাচাই বাচাইয়ের প্রথম পর্যায়ের পর পাঁচগাও ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে টাঙানো হয়। তালিকায় ব্যাংকার, চাকরিজীবী, উচ্চবিত্ত ও জনপ্রতিনিধিদের নাম দেখে স্থানীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে অবগত করলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে  অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন থেকে তাকে শোকজ করা হয়।
চাটখিল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. দিদারুল আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মানবিক সহায়তার তালিকায় ২৬০জন উপকারভোগীর নামের সাথে উচ্চবিত্ত ১২টি নাম সংযুক্ত করে তালিকা তৈরি করে চেয়ারম্যান। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানীত হওয়া তাকে শোকজ করে তিন কর্মদিবসের মধ্যে লিখিত জবাব দিতে বলা হয়েছে।