Sharing is caring!

অনলাইন ডেস্কঃ

ঈদের আগের দিন সাত জেলায় সড়কে ও নৌপথে ঝড়ল নারী-শিশুসহ ১৯ জনের প্রাণ। এদের মধ্যে সিলেটে স্বামী-স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ প্রাণ গেছে ৫ জনের, হবিগঞ্জে তিনজন, গাইবান্ধায় তিনজন, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ ও শেরপুরে সড়কে মারা গেছেন একজন করে। এছাড়া, টাঙ্গাইলের বাসাইলে নৌকাডুবে মা-ছেলেসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৯ জন। শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

সিলেট: ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলায় বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাইভেটকারে থাকা একই পরিবারের চারজনসহ পাঁচজন মারা গেছেন। সকাল ৮টার দিকে উপজেলার বরাইয়া তানপুর এলাকায় সিলেটে-ঢাকা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার সাতগাঁও ইউনিয়নের লইয়াকুল গ্রামের স্বপন কুমার দাস, তার স্ত্রী লাভলী রানী দাস, তাদের দুই সন্তান ও প্রাইভেটকারের চালক। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন স্বপন কুমারের আরেক সন্তান। তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তামাবিল হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মাকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম বলেন, সিলেট থেকে কুমিল্লার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া কুমিল্লা ট্রান্সপোর্টের একটি বাস ও ঢাকা থেকে সিলেটগামী একটি প্রাইভেটকারের লামা তাজপুরের তানপুর এলাকায় সংঘর্ষ হয়। এ সময় বাসের নিচে ঢুকে যায় প্রাইভেটকার। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ও ওসমানীনগর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাস কেটে প্রাইভেটকার বের করে বলে জানান ওসি।

হবিগঞ্জ: জেলার বাহুবলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাসের ধাক্কায় দুই নারী গার্মেন্টসকর্মীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন।সকালে বাহুবলের আব্দানারায়ন এলাকায় মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে দু’জন নারী গার্মেন্টসকর্মী ও অপরজন প্রাইভেট কারের চালক। তাদের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বাহুবল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান জানান, নিহতরা সম্ভবত সুনামগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন। মরদেহগুলো শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানায় পাঠানো হয়েছে।

গাইবান্ধা:ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথেগোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় প্রাইভেটকারের সঙ্গে মুখোমুখি সংর্ঘষে কাভার্ডভ্যানের তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ছয়জন।

সকালে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে উপজেলার নুনদহ ব্রিজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বানেশ্বর গ্রামের আশিকুর রহমান (৫৫), রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার কিশমতপুর গ্রামের মল্লিক আলীর ছেলে সাহেব মিয়া (৩৩) ও একই উপজেলার ইসমতপুর গ্রামের তোফায়েল আহম্মেদের ছেলে কাজল মিয়া (৩২)।

গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানি জানান, নিহতদের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রণবাঘা এলাকায় ট্রাকচাপায় শাপলা খাতুন (২৮) নামে এক এনজিওকর্মী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন তার স্বামী তাজনুর রহমান ও সাত বছরের শিশু কন্যা।

সকাল ৯টার দিকে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তারা বগুড়ার কাহালু উপজেলার মালীবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় চালকসহ ট্রাকটিকে নাটোরের সিংড়া উপজেলার জামতলী এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে বলে জানান বগুড়া কুন্দারহাট হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম।

সিরাজগঞ্জ: সকালে উল্লাপাড়া উপজেলার সলঙ্গা থানাধীন চড়িয়া কান্দিপাড়া এলাকায় দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে আতিয়া খাতুন (২৮) নামে এক নারী নিহত হন। এ ঘটনায় কমপক্ষে ট্রাকে ১০ যাত্রী আহত হয়েছেন।

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম জানান, সকালে হাটিকমুরুল-বনপাড়া মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আতিয়া রাজশাহীর পুঠিয়া এলাকার সাগর হোসেনের স্ত্রী।

শেরপুর: শেরপুরের নকলা উপজেলায় কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় রাজীব মিয়া (৩০) নামে এক পথচারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কাভার্ড ভ্যানের চালক ও সহকারী।

Sharing is caring!