Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী অলস্কয়ার হাসপাতালের মালিক শাহাব উদ্দিনক (৪৭) কে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে হাসপাতাল থেকে তাকে আটক করে। একই দিন সকালে উপজেলার আমিশাপাড়া এলাকার শামছুউদ্দিন বাদী হয়ে হাসপাতালের প্যাথলজিষ্ট রাসেল সহ দুইজনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা ও ভুক্তভোগী সুত্রে জানা যায়, উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নের বাছাইরগাও গ্রামের সামসুল আলমের নয় মাসের অন্তস্বত্তা স্ত্রী নয়ন মনির প্রসব ব্যাথা দেখা দিলে গত শনিবার (১ অক্টোবর) রাত ১ টার দিকে অল স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

পরে শারীরিক পরিক্ষার পর রুগীর রক্তস্বল্পতা থাকায় প্যাথলজিষ্ট মোহাম্মদ রাসেল রক্তের গ্রুপ নির্নয় করে বি পজিটিভ রিপোর্ট দেয়। সে মতে রক্তের ব্যাবস্থা করা হয়। শরীরে রক্ত দেওয়ার কিছুক্ষণ পরে নয়ন মনি চিৎকার শুরু করেন, এক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পনুরায় আরেক ব্যাগ রক্ত দেওয়ার পর অবস্থার অবনতি ও জরায়ুতে প্রচুর রক্তক্ষরণ শুরু হয়। এমবতাবস্থায় কর্তব্যরত ডাক্তার নয়ন মনি কে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাইজদি সদর হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলে। নয়ন মনির পরিক্ষা নিরিক্ষা করে নয়ন মনির রক্তের গ্রুপ এ পজিটিভ বলে জানায়। পরে সেখানকার ডাক্তার জানায় ভুল চিকিৎসায় নয়ন মনি ও তার শিশুটির অবস্থার অবনতি হয় এবং শিশুটির মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নয়ন মনির স্বামী ও মৃত শিশুটির বাবা সামসুল আলম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। শামসুউদ্দিন অভিযোগ করেন, সোনাইমুড়ী উপজেলা জামায়াতে ইসলামের আমির ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ভাবে অনুমোদন ছাড়া হাসপাতাল পরিচালনা করে আসছে। সেখানে নির্ধারিত কোন প্রশিক্ষিত প্যাথলজিষ্ট, ডিপ্লমাধারী নার্স নেই।

সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগীর স্বামী মামলা দায়ের করলে অলস্কয়ার হাসপাতালের মালিক শাহাব উদ্দিনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

Sharing is caring!