Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পাহাড়ে সমতলে অব্যাহত ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে ৯দফা দাবীতে ঢাকা-নোয়াখালী লংমার্চের কর্মসূচীতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২৭জন আন্দোলনকারী আহত হয়েছে। আহতদের নোয়াখালীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে নোয়াখালীর জেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ মিছিল, সমাপনী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্য দিয়ে লংমার্চ সমাপ্তি ঘোষনা করেন আয়োজকরা।

এরআগে, সকালে কুমিল্লা, ফেনীর শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ, ফেনী কোম্পানীর মোড় হয়ে ঢাকা থেকে আসার পথে দাগনভূঞা উপজেলায় তারা দূর্বৃত্তদের হামলার শিকার হন। এতে সামিয়া জামান ইমা (২১), আসমাউল হুসনা (২০), মাহি (২১), মাহমুদা দিপা (২০), ফিতন ফকির (২৮), ইমতিয়াজ আহম্মেদ রাকিব (২৪), কৃজম ফকির (২৫), মিরাজ হোসেন (২২), মারিয়া আক্তার (২০), এইচ এম রিয়াদ হোসেন (২৭), মাহির শাহরিয়ার রেজা (২৫)সহ ২৭জন আহত হন। বিকাল ৩টার দিকে নোয়াখালীতে এসে আতদের মধ্যে ১৬জনকে চৌমুহনী লাইফ কেয়ার হাসপাতাল ও ১১জনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের সবার হাত-পা’সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত লেগেছে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদরি জয় জানান, ধর্ষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে পূর্ব ঘোষিত নয় দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ঢাকা থেকে নোয়াখালীর উদ্দ্যেশে এ লংমার্চের আয়োজন করা হয়। পথে ফেনীতে দূর্বৃত্তরা আমাদের কর্মসূচীতে হামলা চালায়। এতে আমাদের অনেকেই আহত হন।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহজাহান শেখ বলেন, আহতরা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল ও চৌমুহনী লাইফ কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে তাদের খবরা খবর নিয়েছে।

Sharing is caring!