Sharing is caring!

ফেনী প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ না থাকায় একদিকে যেমন তাদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা হচ্ছেনা, অপরদিকে পেশাগত সম্মানও সমুন্নত থাকছেনা। নিজেদের অধিকার ও পেশাগত নিরাপত্তার স্বার্থে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান তিনি।

আজ বুধবার ফেনী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল আয়োজিত ‘মুজিববর্ষের অঙ্গিকার- হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার’ শীর্ষক স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দের অংশগ্রহণে মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

জেলা প্রশাসক মো: ওয়াহিদুজজামানের সভাপতিত্বে ও প্রেস কাউন্সিল সচিব শাহআলমের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার খোন্দকার নূরুন্নবী। বক্তব্য রাখেন দৈনিক প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আবু তাহের, দৈনিক ফেনীর সময় সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, ডিবিসি ও অবজারভার জেলা সংবাদদাতা মুহাম্মদ আবু তাহের ভূঁইয়া, চ্যানেল আই জেলা সংবাদদাতা রবিউল হক রবি, যুগান্তর জেলা সংবাদদাতা যতন মজুমদার, চ্যানেল টুয়েন্টিফোর জেলা সংবাদদাতা দিলদার হোসেন স্বপন, সাপ্তাহিক উদয় সম্পাদক এম এ সাঈদ খান, মাছরাঙ্গা টিভি ও বাংলাদেশ প্রতিনিধি সংবাদদাতা জমির বেগ, মানবজমিন ও বিডি নিউজ প্রতিনিধি নাজমুল হক শামীম প্রমুখ। সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোছা: সুমনী আক্তার, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরীন সুলতানা প্রমুখ প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, এক শ্রেণির স্বার্থান্বেষী মহল সাংবাদিকতাকে পুঁজি করে নানারকম ধান্ধাবাজি করে এ পেশাকে কলুষিত করেছে। সাংবাদিক লেখা গাড়িতে ইয়াবা বহন করে, নানা অপকর্ম করে। ‘সাংবাদিক’ স্ট্রিকার দেখলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজনও ভয় পায়।

তিনি বলেন, এ পেশা হচ্ছে নীতি-নৈতিকতার। এখানে আসতে হয় ত্যাগের মানসিকতা নিয়ে। নিজের বিবেককে প্রশ্ন করতে হবে আমরা কতটা সততার সাথে কাজ করছি। তিনি বলেন, যেখানে সাংবাদিকদের বেতন ভাতা উল্লেখ ছাড়াই কেবল ‘পরিচয়পত্র’ ধরিয়ে দেয়া হয়, সেখানে ওয়েজ বোর্ড নিয়ে আলোচনা কীভাবে ফলপ্রসূ হবে। এছাড়া কোন দাবীর প্রশ্নেই সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ প্রস্তাবনা নেই। এর ফলে তাদের দাবীও যথাযথভাবে আদায় হয়না।

তিনি সাংবাদিকতায় ফেনীর গৌরবজ্জ্বল ইতিহাস স্মরণ করে বলেন, এখানকার কৃতি সন্তানরা দেশের সংবাদপত্রকে সমৃদ্ধ করেছে। তারা সাংবাদিকতা শিখিয়েছেন। তিনি ভূইফোঁড অনলাইন পোর্টাল, টিভি সহ অনুনোমোদিত সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এছাড়া দেশে কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে দ্রুততম সময়ের মধ্যে একটি ডাটাবেইজ তৈরির প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি।

সাংবাদিকরা তাদের বক্তব্যে সাংবাদিকরা নিপীড়ন বন্ধ, তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিতকরণ, ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়নের দাবী জানান।

শেষে দৈনিক ফেনীর সময় সম্পাদক মোহাস্মদ শাহাদাত হোসেন রচিত ‘ফেনীর সাংবাদিকতা ও সংবাদপত্র’ গ্রন্থটি প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান বিচারপতি মমতাজ উদ্দিনেরর হাতে তুলে দেন।

Sharing is caring!