Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

বাংলাদেশ আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দলীয় পরিচয় কোন অপরাধীর পরিচয় বা রক্ষা কবচ হতে পারেনা। মাদক,সন্ত্রাস,কিশোর গ্যাং কালচার আমাদের সব উন্নয়নকে ম্লান করে দেয়। বিএনপি আমাদের শক্র নয়। আমরা তাদের নেতিবাচক রাজনীতির বিরোধীতা করি। তারা হাওয়া ভবনের নামে সর্বত্র লুটপাঠ করায় দেশের মানুষ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বিএনপির মহাসচিব একজন সজ্জন মানুষ। তাকে অন্ধকার থেকে পুতুল নাচানো হয়। তিনি নির্বাচিত হওয়ার পরও তাকে সংসদে যেতে দেয়া হয়নি। হঠকারিতা বাদ দিয়ে আসুন গণতন্ত্রের ভাষায় কথা বলি। আ’লীগ চিরদিন ক্ষমতায় থাকবে, তা আমরা বলিনা। তবে জনগণের প্রতি আমাদের আস্থা আছে।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টায় ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে চৌমুহনী পৌর পার্ক ও পৌর বাস টার্মিনাল উদ্ভোধন অনুষ্ঠানে পৌরসভার মেয়র আক্তার হোসে ফয়সল’র সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

চৌমুহনী পৌরসভার উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন এবং দু’টি প্রকল্পের উদ্ভোধন ঘোষণা করেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার সন্ত্রাসী ও নারী নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। শেখ হাসিনার সরকার গরিবের কথা, দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির কথা বললে আপনাদের গাত্রদাহ হয়। বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে শহর ও গ্রামকে কাছাকাছি এনে প্রতিটা গ্রামকে শহরে রুপান্তরিত করছে। উন্নয়নে মেয়রদের জবাবদিহিতার আওতায় থাকতে হবে। দেশের সকল পৌর মেয়রদের বলবো স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মধ্যে উন্নয়নকে জনগণের দারপ্রান্তে পৌঁছে দিতে হবে। পৌর মেয়রদের শাসক নয়, জনগণের সেবক হিসেবে দেখতে চায় শেখ হাসিনার সরকার।

এ সময় ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খাঁন, পুলিশ সুপার মো.আলমগীর হোসেন। একই সময় ঢাকা থেকে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণ করেন, বাংলাদেশ নিউনিসিপাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (বিএমডিএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিনুর রহমান।

উল্লেখ্য,২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে চৌমুহনী পৌর পার্ক ও পৌর বাস টার্মিনাল প্রকল্প বাস্তবায়ণে বিশ্বব্যাংক ৯০% অর্থের যোগান দেয় বাকী ১০% অর্থ চৌমুহনী পৌরসভা যোগান দেয়।

Sharing is caring!