Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা বসুরহাট পৌরসভার রুপালি চত্বরে সকাল ১১টায় সংবাদ সন্মেলন করেছেন।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার চাপরাশির হাটে তার সমর্থিত লোকজনের উপর সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যন মিজানুর রহমান বাদলের নেতৃত্বে অযাচিত হামলা ও গুলিবর্ষণ করে অন্তত ২০ জনকে আহত করে। এর মধ্যে ৭ জন গুলিবিদ্ধ হয়।

তিনি এঘটনার সাথে জড়িত নোয়াখালি-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরি, ফেনীর সংসদ সদস্য নিজাম হাজারি ও মিজানুর রহমান বাদলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

অপরদিকে, একই উপজেলার পেশকার হাট রাস্তার মাথায় দুপুর ১টায় সংবাদ সন্মেলন করেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং কেন্দ্রিয় ও স্থানীয় নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও অশালীন বক্তব্য দেওয়ার দায়ে আবদুল কাদের মির্জাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়।

জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন এর কাছে জোর দাবি জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আবদুল কাদের মির্জাকে অবিলম্ভে গ্রেফতার করে উন্নতমানের মানসিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

Sharing is caring!