Sharing is caring!

প্রতিবেদকঃ
চাটখিল উপজেলার দেলিয়াইতে শরীরে কোন করোনা না পাওয়া গেলেও এক মহিলা ও তার শিশুকে তাদেের দেলিয়াই বাজার সংলগ্ন ভাড়া বাড়িতে (ছেরাজুল হক মঞ্জিল) ঢুকতে বাঁধা দেন বাড়ির মালিকের স্ত্রী রিনা বেগম (৪৫)।
চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দিদারুল আলম ও চাটখিল থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম নিজে এসে মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে তাদের তাদের ভাড়া বাসায় তুলে দেন।
এ সময় তাদের সাথে খিলপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, ডা. তামজিদ হোসেন, সাংবাদিক কামরুল কানন, এসআই নুর আলম, ইউপি মেম্বার জাকির হোসেন বাবলু, জসিম উদ্দিন, দেলিয়াই বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সেক্রেটারী আবু তৈয়ব, স্বাস্থ্য কর্মী তৌহিদ হোসেন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
ইউপি সদস্য জাকির হোসেন বাবলু জানান, ২দিন আগে করোনা পজিটিভ হওয়া দেলিয়াই হাসেমিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক বেলায়েত হোসেন তার ছেলের করোনা পজিটিভ আসে। কিন্তু স্ত্রী এবং অন্য শিশু সন্তানের দেহে করোনার কোন আলামত না পাওয়ায় সন্ধ্যায় তারা উপজেলার প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন থেকে তাদের ভাড়া বাসা দেলিয়াইতে গেলে সে বাড়ির মালিক আমেরিকা প্রবাসী আলমগীর হোসেনর স্ত্রী রিনা বেগম তাদের বাড়িতে উঠতে বাধা দেয়।
খবর পেয়ে খিলপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই নুর আলম, স্বাস্থ্য কর্মী এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা অনেক বুঝিয়েও তাদেরকে বাসায় তুলতে ব্যর্থ হন। পরে রাত ৯ টার দিকে ইউএনও দিদারুল আলম, ওসি আনোয়ারুল ইসলাম ওই বাড়িতে গিয়ে বাড়িওয়ালা মহিলাকে বুঝিয়ে করোনা নেগেটিভ হওয়া মহিলা ও শিশুকে তাদের ভাড়া বাসায় ওঠানোর ব্যবস্থা করেন।

Sharing is caring!