Sharing is caring!

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, নানাভাবে চরের জমিদার দখল হয়ে যাচ্ছে। যারা এসব জমি দখল করে তারা অনেক শক্তিশালী। তারা মাকড়সার জ্বালের মতো ছড়িয়ে আছে। মাথায় হাত বুলিয়ে তাদের বুঝিয়ে এসব খাস জমি উদ্ধার করতে হবে।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) নগরীর বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে ‘চরের মানুষের জন্য ভূমি : সংস্কার ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক এক সংলাপে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমি হয়ত এমপি আছি আমি খাস জমি দখল করছি, আমি কোনো এনজিওর মালিক কিংবা প্রফেসর আছি আমিও চরের খাস জমি দখল করছি। যারা এসব করে তারা অনেক শক্তিশালী। এখন কিন্তু আমরা ঔপনিবেশিক আমলে বসবাস করছি না। একই চক্র হাজার হাজার বিঘা জমি দখল করবে এটা হতে পারে না।

আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতির সাথে সংলাপে বঙ্গভবনে ইনুর নেতৃত্বে জাসদ

ন্যাশনাল চর অ্যালায়েন্সের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, চরের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো দরকার। চরের জন্য যে তহবিল রয়েছে তা বাস্তবায়ন দরকার। চরের অনেক পরিবর্তন হচ্ছে। এসব চরের উন্নয়ন জরুরি। আমরা দেখেছি একটা চরে সাবমেরিনের ক্যাবল দিয়ে বিদ্যুৎ দেয়া হচ্ছে। সরকারের এটা ভালো উদ্যোগ সমস্ত চরে বিদ্যুৎ দেয়া দরকার।

তিনি বলেন, দেশের জন্য কাজ করতে হবে। দেশকে ভালোভাবে জানতে কাজ করতে হয়। চরের মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। চরের মানুষের সখা হওয়ার মতো এতো আনন্দ আর কিছুতেই নেই।

সংলাপ অনুষ্ঠান আয়োজনে সহায়তা করেছে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। ন্যাশনাল চর অ্যালায়েন্সের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. আতিউর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবীর, কৃষি বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য, কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি, নারী ও শিশু বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য লুৎফুন্নেছা খান এবং আইন ও বিচার বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন।

Sharing is caring!