Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

 

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ ও কবিরহাট উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ২জনের মৃত্যু হয়েছে। জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৪জন। এদিকে জেলায় পর্যায়ে তিন দফা ও গত ১জুলাই থেকে সারাদেশের ন্যায় নোয়াখালীতে কঠোর লকডাউন দিলেও কমছে না সংক্রমণ। নতুন করে আরও ১৬৪জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার শতকরা ২৯দশমিক ০৮ শতাংশ। এদিকে চলমান বিধি নিষেধ অমান্য করায় ১০৬জনকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সুবর্ণচর, চাটখিল ও কবিরহাটসহ কয়েকটি স্থানে গরু বাজার বন্ধ করা হয়েছে।

 

জানা গেছে, লকডাউনের শুরু থেকে জেলায় কঠোরতা থাকলেও বর্তমানে ঢিলেঢালা ভাবে চলছে লকডাউন। পৌর এলাকাগুলোতে মানুষের উপস্থিতি কম থাকলেও বাইরের বাজারগুলোতে মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করার মত। সড়কে বেড়েছে মানুষ ও যানবাহনের সংখ্যা। গ্রাম অঞ্চলের বেশির ভাগ দোকান পাট খোলা রয়েছে। মানুষকে স্বাস্থ্য বিধি সম্পর্কে সচেতন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহলের পাশাপাশি জেলার গুরুত্বপূর্ন স্থানে বসানো হয়েছে পুলিশের চেক পোস্ট। লকডাউন অমান্য করায় শুক্রবার দিনব্যাপী জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ১০৬টি মামলায় ১লাখ ২৯হাজার ৩৫০শ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

 

শনিবার সকালে করোনা আক্রান্তের তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার।

 

তিনি জানান, গত ২৪ঘন্টায় জেলার তিনটি পিসিআর ল্যাবে ৫৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৪২জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে সদরে ৫৫, সুবর্ণচরে ২, বেগমগঞ্জে ৩৪, সোনাইমুড়ীতে ৬, সেনবাগে ১৩, কোম্পানীগঞ্জে ২৮ ও কবিরহাটে ২৬জন রোগি রয়েছে। জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১২হাজার ৪৬৭জন। যার মধ্যে মারা গেছেন ১৫৪ আর সুস্থ্য হয়েছেন ৭হাজার ৭৫৩জন রোগী। বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ৪হাজার ৫৬০জন। শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামের কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৬২জন রোগী। জেলায় সংক্রমণের হার কমাতে স্বাস্থ্য বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে।

জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. খোরশেদ আলম খান জানান, লকডাউন কার্যকর করতে ও জনগণকে স্বাস্থ্য বিধি সম্পর্কে সচেতন করতে জেলার বিভিন্ন বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ১০৬টি মামলায় জরিমানা করা হয়েছে।

ভিডিও

Sharing is caring!