Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে ক্ষমা চেয়ে পারিবারিকভাবে ওবায়দুল কাদেরের পক্ষে কাজ করার ঘোষণা দিয়ে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও ওবায়দুল কাদেরের জন্য স্লোগান দিলেন নোয়াখালী-৪ আসনের আলোচিত সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী।

 

বুধবার (২৩ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় কবিরহাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বক্তৃতাকালে তিনি ওবায়দুল কাদেরের কাছে তার অতীত কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চান।

https://business.facebook.com/Salimjournalistbd/videos/573028624629820/

এসময় একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, আমি গতকাল কাদের ভাইকে ফোন করেছিলাম। আমি উনাকে (ওবায়দুল কাদের) বলেছিলাম, আপনি আমার বড় ভাই, এখানে অনেক লোক আছে, আমি প্রকাশ্যে আপনার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি, আমি অন্যায় করেছি, আমার বড় ভাই আপনার কাছে মাফ চেয়েছেন, আমিও আপনার কাছে মাফ চাচ্ছি। উনি (ওবায়দুল কাদের) আমাকে বললেন ঠিক আছে কাজ করো।

 

এমপি একরাম বলেন, সমসাময়িক কারণে আমাদের কিছু ভুল বুঝাবুঝি হতে পারে, আমরা যতদিন বাঁচবো ওবায়দুল কাদেরের পিছনে থেকেই রাজনীতি করবো। কাদের ভাইয়ের বিরুদ্ধে আমার কোন কথায় ভুল হয়ে থাকলে আমি প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। কাদের ভাইয়ের সিদ্ধান্ত আমরা সবাই মেনে নিব।

 

সম্মেলনে একরামুল করিম চৌধুরীর বক্তব্যের পরই প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের। এসময় তিনি একরামুল করিম চৌধুরীকে ক্ষমা করে দিয়েছেন বলে তাকে দলের জন্য কাজ করার নির্দেশ দেন।

 

সম্মেলনে কবিরহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুল আমিন রুমির সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক রায়হানের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এমপি একরামুল করিম চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ এ.এইচ.এম খায়রুল আনম সেলিম, যুগ্ম-আহ্বায়ক শিহাব উদ্দিন শাহীন, শহীদুল্লাহ খাঁন সোহেল প্রমূখ।

Sharing is caring!