Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

 

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে কোমল পানির সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পাল্লার বাজারে এক গৃহবধূকে (২৩) মারধর ও পরে ধর্ষণের অভিযোগে সোমবার সকালে ভুক্তভোগী নারী বাদি হয়ে একজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও একজনকে আসামী করে চাটখিল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত আসামীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছেন চাটখিল থানার ওসি আবুল খায়ের।

 

এর আগে, পূর্ব পরিচয়ে পারিবারিক সমস্যা থাকায় পাঁচগাও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ আল মতিন (৩৮) এর কাছে একটি চাকরির কথা বলেন ওই গৃহবধূ। ফুহাদ নিজেকে বড় মানের একজন নেতা দাবি করে গৃহবধূর কাছ থেকে একটি জীবন বৃত্তান্ত জমা নেন। এর সূত্র ধরে গত রোববার (২০ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০টায় তার পাল্লার বাজার কার্যালয়ে আসতে বললে সিএনজি যোগে পাল্লার বাজার ফুয়াদের কার্যালয়ে আসেন গৃহবধূ। আসার পর প্রথমে তাকে নাস্তা ও পরে কোমল পানিয় দেওয়া হয়। তাতে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে প্রথমে মারধর ও পরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে ফুয়াদ আল মতিন। এসময় তার এক সহকারি সবকিছু মোবাইলে ভিডিও ধারন করে এবং কাউকে কিছু বললে ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়া ও হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। পরে তারা ধর্ষীতা ওই গৃহবধূকে একটি অটোরিকশায় তুলে দিলে রিকশা তাকে চাটখিল ও পাল্লার বাজারের মাঝামাঝি জায়গায় নামিয়ে দেয়। ওই স্থান থেকে এক সিএনজি চালকের সহযোগিতায় তাকে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

 

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ফুয়াদ আল মতিনকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে। এঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারী বাদি হয়ে একজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত একজনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

Sharing is caring!