Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

নোয়াখালী কবিরহাট উপজেলায় নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন করা হয়েছে।

সোমবার সকালে কবিরহাট উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন, অনলাইনে যুক্ত হয়ে কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠান উপভোগ, আলোচনা সভা, বাদ জোহর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান, জাতির শান্তি সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, প্যাগোড়া ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত/প্রার্থনা সকল সরকারি, আধা- সরকারী, বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ভবন এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রচনা, আবৃত্তি ও “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ” প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ৭ মার্চ এ দিনটির উদযাপন শেষ করা হয়।

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল মামুনের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন রুমি, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক রায়হান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিশকাতুল তামান্না, কবিরহাট থানার ওসি টমাস বড়ুয়া সহ উপজেলার সকল সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তা, মুক্তিযুদ্ধা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনে নেতাকর্মীরা।

 

উপজেলা অডিটোরিয়ামে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ও বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ভাষণ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ‘এ ভাষণের মাধ্যমেই বাঙালী পেয়েছে স্বাধীনতার ডাক। যার কারণে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন বাংলাদেশ।’

 

বক্তারা আরও বলেন, ‘৭ মার্চের ভাষণের এমনই শক্তি যে বাঙালি জাতিকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে উদ্বুদ্ধ করে তোলে। নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধেও এই ভাষণই বাঙালিকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। আজও বাঙালি জাতি, বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষকে এ ভাষণ উদ্দীপ্ত করে, পথ দেখায়।’

Sharing is caring!