Sharing is caring!

১৯১৫ সালের চানাক্কালে সেতুটি পুনর্র্নিমাণে ২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার ব্যয় করেছে তুরস্ক। দক্ষিণ কোরিয়া ও তুরস্কের কোম্পানিগুলো সেতুটি নির্মাণ করে, যেটির টাওয়ারগুলোর মধ্যকার দূরত্ব ২.০২৩ কিলোমিটার। তুরস্কের পতাকার সঙ্গে মিল রেখে একে লাল ও সাদা রঙে রাঙানো হয়েছে।
দার্দানেলিস প্রণালিতে বিশ্বের দীর্ঘতম ঝুলন্ত সেতু উদ্বোধন করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।
এর মধ্য দিয়ে তুরস্কের এশিয়া প্রান্ত থেকে ইউরোপে যেতে সময় লাগবে মাত্র ৬ মিনিট।
টিআরটি ওয়ার্ল্ডের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ১৯১৫ সালের চানাক্কালে সেতুটি পুনর্র্নিমাণে ২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার ব্যয় হয়েছে। তুরস্ক ও দক্ষিণ কোরিয়া সেতুটি নির্মাণ করে, যেটির টাওয়ারগুলোর মধ্যকার দূরত্ব ২.০২৩ কিলোমিটার। তুরস্কের পতাকার সঙ্গে মিল রেখে একে লাল ও সাদা রঙে রাঙানো হয়েছে।
এর আগে বিশ্বের দীর্ঘতম ছিল জাপানের আকাশি কাইকিয়ো সেতু।
প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্ট হিসেবে দুই দশকের শাসনামলে অনেক অবকাঠামোগত মহাপ্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন এরদোয়ান। এর মধ্যে বসফরাস প্রণালিতে তৃতীয় সেতুও রয়েছে।
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ইস্তাম্বুলে একটি খাল বানানোর পরিকল্পনা করছেন, যেটি বসফরাসের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার হবে।

Sharing is caring!