Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

 

নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভবন নির্মাণের চেষ্টার অভিযোগে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে চ্যানেল-২৪ ও নিউজ-২৪ সহ কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ সময় তারা চ্যানেল দু’টির ক্যামেরা পার্সনদের সাথে অশোভন আচরণ করে এবং তাদের মারধরের চেষ্টা করে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। পরে সুধারাম মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সংবাদকর্মীদের উদ্ধার করে।

 

শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে শহরের বড় মসজিদ মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, শহরের মোহাম্মদী প্রেস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের জায়গা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের কারনে জায়গাটি নিয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। কিন্তু একটি পক্ষ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওইস্থানে ভবন নির্মানের কাজ করে। এমন অভিযোগ পেয়ে দুপুরে সুধারাম মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়।

 

চ্যানেল-২৪ নোয়াখালী প্রতিনিধি অমৃত লাল ভৌমিক (সুমন ভৌমিক) জানান, খবর পেয়ে সংবাদ সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে যায় চ্যানেল ২৪ ও নিউজ-২৪সহ কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী। এ সময় পার্শ্ববর্তী প্রতিষ্ঠান সেন্টার পয়েন্টের সত্ত্বাধিকারী সোহেল আহসান ও মো. সোহেল’সহ তাদের লোকজন ক্যামেরা পার্সন’সহ আমাদের ওপর চড়াও হয়। তারা ক্যামেরা পার্সনদের হাত থেকে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে এবং তাদের সাথে অশোভন আচরণ এবং মারধরের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে সুধারাম থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে এবং সংবাদকর্মীদের উদ্ধার করে।

 

অভিযোগ রয়েছে, সেন্টার পয়েন্টসহ আশপাশের একাধিক প্রতিষ্ঠান সরকারি গণপূর্ত বিভাগের জায়গা দখল করে ভবন নির্মাণ করছে।

 

অভিযুক্ত সোহেল আহসান বলেন, ঘটনাটি আসলে ভুল বুঝাবুঝি। এমন ঘটনার জন্য তিনি লজ্জা প্রকাশ করেছেন।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আদালত থেকে নিষেধাজ্ঞা থাকায় পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ বন্ধ করে দেয়। কেউ যদি গণমাধম্যকর্মীদের সাথে অশোভন আচরণ করে সে বিষয়ে অভিযোগ পেলে অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!