Sharing is caring!

আগামী ৮ মে বাংলাদেশ সফরে আসবে শ্রীলঙ্কা। এই সফরে দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে দুই দল। সে সিরিজে সাকিব থাকবেন কিনা, সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত নয় বিসিবি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ক্রিকেট অপারেশন্স জালাল ইউনুস রবিবার এমনটাই জানিয়েছেন গণমাধ্যমকে। পারিবারিক সমস্যার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলে দেশে চলে আসেন সাকিব। দেশে ফেরার পর বেশিদিন থাকেননি। মেয়ে আলাইনা হাসান অব্রির স্কুল খুলে যাওয়ায় আমেরিকা চলে যেতে হয় তাকে। কয়েকদিন আগে ক্যানসার আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাকিবের শ্বাশুড়ি। তবে অসুস্থ থাকা পরিবারের বাকিরা সেরে উঠেছেন।

আগামী ৮ মে বাংলাদেশে আসবে শ্রীলঙ্কা। এরপর চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হবে ১৫ মে থেকে। সিরিজ শুরু হতে প্রায় এক মাসের মতো সময় থাকলেও সাকিবের খেলার ব্যাপারে এখনই নিশ্চয়তা দিতে পারছে বিসিবি। তবে জালাল ইউনুস বলেছেন, সাকিব শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলবেন কী না সেটি জানা যাবে আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে। শ্রীলঙ্কা সিরিজকে সামনে রেখে রোববার নির্বাচক, টিম ডিরেক্টর ও বিসিবির প্রধান নির্বাহীর সঙ্গে মিটিং শেষে জালাল ইউনুস বলেছেন, এ ব্যাপারে আমি দু’একদিনের মধ্যে সাকিবের কাছ থেকে জানতে পারব। তার সঙ্গে আলাপ আলোচনা হচ্ছে, যেহেতু কিছুদিন আগে তার শাশুড়ি মারা গেছেন, সে অনেক ব্যক্তিগত সমস্যায় ছিল। সেজন্য তাকে আমরা কিছু বলিনি। তার পারিবারিক সমস্যা সমাধান হলে তাকে আমরা পেতে পারি।

সাকিবের বিষয়টি অনিশ্চিত হলেও দলের দুই পেসার তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলামকে যে শ্রীলঙ্কা সিরিজে পাওয়া যাচ্ছে না সেটি নিশ্চিত করেছেন জালাল ইউনুস।আমরা এটাকে (তাসকিনের চোট) বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। ইতোমধ্যে সে কনভেনশনাল ট্রিটমেন্টে আছে কিন্তু, এটায় যদি বেশি সময় লাগে… সেজন্য বিকল্প কোনও চিকিৎসা যদি থাকে, আমরা ইংল্যান্ডের কথা বলছি। যদি প্রয়োজন হয় তাকে আমরা বাইরে পাঠিয়ে দিব। শ্রীলঙ্কা সিরিজে তাকে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। শরিফুলের অস্ত্রোপচার লাগবে। এজন্য তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে দ্বিতীয় টেস্টে তাকে পাওয়া যেতেও পারে।

Sharing is caring!