Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি::

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সোহাগ (২৮), নামে এক যুবকের করোনা সন্দেহে পাল্টাপাল্টি হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। পরে হামলার শিকার যুবকের লোকজন ওই করোনা রোগীর বাড়িতে পাল্টা হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে।

সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার চারপার্বতী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের পূর্ব মেহেরুন্নেচ্ছা গ্রামের হাজী বাড়ির প্রবাসী নুর ইসলাম’র ঘরে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার (১৬জুন) সকাল সাড়ে ১১টায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন চরপার্বতী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন কামরুল। তিনি আরও জানান, প্রবাসীর ছেলে সোহাগের করোনা পজিটিভ ছিল। পরে সে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার রাতের দিকে প্রবাসী নুর ইসলাম’র ছেলে সোহাগ (২৮), মেহেরুন্নেচ্ছা গ্রামের হাজী বাড়ি দোকান ঘরে গিয়ে আড্ডা দিচ্ছে। এ সময় একই গ্রামের কাতান (৪০) নামে এক যুবক তাকে করোনা রোগী অবহিত করে বাড়ি থেকে দোকানে আসতে বারণ করলে দু’জনের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সোহাগের আঘাতে কাতানের মাথা পেটে যায়। পরে কাতান তার লোকজন নিয়ে প্রবাসী নুর ইসলাম’র বাড়িতে হামলা চালিয়ে বসত ঘর ভাংচুর করে।

চরপার্বতী ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হাফিজ উল্যাহ বাহার জানান, করোনা রোগী সন্দেহে পাল্টাপাল্টি হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। কাতান আহত অবস্থায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আরিফুর রহমান জানান, এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না।

Sharing is caring!