Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি :

 

 

কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগের বিবদমান দুই গ্রুপের দ্বন্দ্ব সংঘাতের জেরে উত্তাপ্ত ছড়াচ্ছে। ঠিক ওই মুহূর্তে কোম্পানীগঞ্জের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে আর যাতে রক্তপাত না হয়,সংঘর্ষ না হয়,অস্ত্র মুক্ত, মাদক মুক্ত,দখলদার মুক্ত,দুর্নীতিবাজ মুক্ত আকাশে মানুষ যাতে নিঃশ্বাস ফেলতে পারে এমন দাবি করে কয়েকটি প্রস্তাব রেখেছেন , সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

বুধবার (২১ এপ্রিল) ভোর পৌনে ৫টার দিকে তার অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে তিনি এসব প্রস্তাব রাখেন।

আবদুল কাদের মির্জা প্রস্তবনা গুলো হল, নোয়াখালীর যে সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিরপেক্ষতা হারিয়েছে কোম্পানীগঞ্জ থেকে তাদের সরিয়ে অস্ত্রের রাজনীতি বন্ধ করতে হবে। সাংবাদিক মুজাক্কির ও সিএনজি চালক আলাউদ্দিন হত্যাকান্ডের ঘটনায় প্রশাসনের তথ্যের ভিত্তিতে দ্রুত বিচার শুরু করতে হবে এবং তাদের পরিবার যেন ন্যায় বিচার পায় সে ব্যবস্থা করতে হবে। ছেলে মির্জা মাশরুর কাদের তাশিকের ওপর হামলার ঘটনায় সরকার এবং প্রশাসনের কাছে বিচারের জোর দাবি জানান। গত তিন মাসের ঘটনায় যারা মামলা করুক না কেন। রাজনৈতিক কারণে মামলায় অনেককে জড়ানো হয়েছে। সেই মামলা গুলো সঠিক ভাবে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করেন।

কোন পুলিশকে কেউ আক্রান্ত করে থাকে। সে ক্ষেত্রে পুলিশ যদি মসজিদে বসে বলে আমাদের এ লোকটা আক্রান্ত হয়েছে। তাহলে আমরা যে কোন ব্যবস্থা মেনে নেব। এখানে ষড়যন্ত্র করে অর্থের বিনিময়ে পুলিশ এসল্ট মামলা করা হয়েছে। আ.লীগ ক্ষমতায় আসলে বিএনপি-জামায়াত এলাকা ছাড়া। আবার তারা ক্ষমতায় আসলে আ.লীগ এলাকা ছাড়া ও মামলা হামলার শিকার। এ সংস্কৃতি বন্ধ করে সহাবস্থানের রাজনীতির চালু করার বিনীত আহবান জানান।

কোম্পানীগঞ্জের আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সকল দলের অংশ গ্রহণে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করার জন্য নির্বাচনের সাথে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান।

কোম্পানীগঞ্জে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক অন্যায়, অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধ করে এখানে সুন্দও পরিবেশ সরকার ও প্রশাসনকে সৃষ্টি করতে হবে। আমি দল থেকে ইতোমধ্যে পদত্যাগ করেছি। এ প্রশ্নে কোন আপোস নেই। আমি ভবিষ্যতে কোন নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবো না। সে জন্য আমার সিন্ধান্ত। কোম্পানীগঞ্জে গত তিন মাসে যারা নৈপথ্যে থেকে অস্থিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে তাদের নাম প্রকাশ করতে হবে। পৌরসভা নির্বাচন শেষে শপথ নিতে যাওয়ার পথে দাগনভূঁঞা আমার ওপর হামলা, আমার ওপর হামলার বিচার হতে হবে।

Sharing is caring!