Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিবেদক:

 

 

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ২০ শয্যা বিশিষ্ট ভাসানচর হাসপাতালে প্রথম এক রোহিঙ্গা দম্পতি সিজারিয়ান শিশুর জন্ম দিয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এই প্রথম কোন রোহিঙ্গা দম্পতি সিজারের মাধ্যমে সন্তানের জন্ম দেয়।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ভাসানচর ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে এই শিশুর জন্ম হয়। জন্মের পর মাও শিশু সুস্থ আছে। সিজার অপারেশনের তত্ত্বাবধানে ছিলেন ডা.সাইফুদ্দিন রাফি ও গণস্বাস্থ্য এনজিওর একটি টিম।

নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, এর আগে ভাসানচর ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে কোন সিজার অপারেশন করা হয়নি। ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় এখন ট্রান্সপোর্ট সম্ভব ছিলনা। তাই জরুরী ভিত্তিতে ভাসানচর ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে এই সিজার অপারেশন করা হলে রোহিঙ্গা দম্পতির ঘরে এক ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। তিনি আরো জানান, এর আগে ভাসানচর ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে স্বাভাবিক প্রসবে ৩০টি শিশুর জন্ম হয়। এ ছাড়াও হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিজারের মাধ্যমে ২টি শিশুর জন্ম হয় এবং নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে সিজারের মাধ্যমে ৭টি রোহিঙ্গা শিশুর জন্ম হয়।

Sharing is caring!