Sharing is caring!

সেনবাগ, (নোয়াখালী) প্রতিনিধি:

 

বাড়ছে সড়ক দূর্ঘটনা, অকালে ঝরছে তাঁজা প্রাণ। নোয়াখালীর সেনবাগে আবারো রাক্ষস ট্রাক্টর-মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে এক গৃহবধূর কোরুন মৃত্যু হয়েছে। এ সময় মোটরসাইকেল চালকসহ আহত হয় আরো দুই জন।

নিহত লায়লা বেগম (৩৫) সেনবাগ উপজেলার ৪নং কাদরা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ তাহিরপুর গ্রামের হাসান আলী মুন্সি বাড়ির আবদুল হালীমের স্ত্রী এবং দুই সন্তানের জননী। আহতরা হচ্ছেন, নিহতের ভাগনি ফারজানা আক্তার (১৮) ও দেবর আব্দুল মোতালেব (২৬)।

এমনই একটি ঘটনা ঘটে বৃহস্পতিবার (৩জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার ৪নং কাদরা ইউনিয়নের মগুয়া বাজার সংলগ্ন নুর ইসলাম মাস্টার বাড়ির সামনের হাইস্কুল সড়কে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেলা ১১টার দিকে লায়লা বেগম তার ভাগনি ফারজানাকে সাথে নিয়ে তাহিরপুর গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে চাচাতো দেবর মোতালেবের মোটরসাইকেলে করে সেনবাগ বাজারে যাচ্ছিল। মোটরসাইকেলটি কাদরা ইউনিয়নের মগুয়া বাজার সংলগ্ন নুর ইসলাম মাস্টার বাড়ির সামনে পৌঁছ হলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাঠি কাটার ট্রাক্টরের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে করে মোটরসাইকেল আরোহী লায়লা বেগম ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা মারা যায়। এ সময় স্থানীয়রা দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাক্টর-মোটরসাইকেল দুটোই আটক করে। পরে পুলিশ এসে ট্রাক্টর-মোটরসাইকেল তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়। আহতরা সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আবদুল বাতেন মৃধা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!