Sharing is caring!

নিজেস্ব প্রতিবেক:

 

 

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার বিভিন্ন খালে অভিযান চালিয়ে ছোট বড় ১১টি ভেসাল জাল ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় একজনকে অর্থদণ্ড করা হয়েছে। একই সাথে জাল বসানোর স্থাপনা ও বাঁশের তৈরি ফ্রেমগুলো ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

 

সোমবার সকাল থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন, কবিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসিনা আক্তার। অভিযানে সহযোগিতা করেন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, পুলিশ ও আলোকিত মানবিক অর্গানাইজেশনের সেচ্ছাসেবীরা।

 

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, দেশীয় মাছ রক্ষা, মাছের বংশবৃদ্ধি ও জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষে সকাল থেকে কবিরহাট পৌরসভা, নরোত্তমপুর ইউনিয়ন ও সোন্দলপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন খালে অভিযান চালানো হয়। অভিযানকালে ওই খালগুলোতে থাকা ৫টি ভেসাল জালসহ ১১টি ছোট-বড় জাল ও মাছ ধরার ফাঁদ ধ্বংস করা হয়। অভিযানকালে কবিরহাট পৌরসভা এলাকায় এক ভেসাল জালের মালিককে ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

 

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. ইয়াছিন মজুমদার বলেন, শৈল, বোয়াল, ফুঁটি, কই এবং শিং মাছ’সহ দেশীয় প্রজাতির মাছগুলো খালের পানিতে বংশবৃদ্ধি করে। কিন্তু কিছু অসাধু লোক খালের মধ্যে ভেসাল জালসহ মাছ ধরার বিভিন্ন ফাঁদ বসিয়ে পোনা মাছগুলো ধরে দেশিয় প্রজাতির মাছের প্রজনন নষ্ট করছে। মৎস্য সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ অনুযায়ি ভেসাল জালের বিরুদ্ধে চালু হওয়া এ অভিযান আগামী নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। অভিযানকালে করমবক্স বাজার খালে দেশীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে।

 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসিনা আক্তার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দেশীয় মাছ রক্ষা ও বর্ষা মৌসুমে খালে পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা সচল রাখতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। ভেসাল জাল ও মাছ ধরার ফাঁদগুলোর কারনে বর্ষা মৌসুমে সঠিকভাবে পানি নিষ্কাশন না হলে পাশ্ববর্তী এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হতে পারে। জনস্বার্থে আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Sharing is caring!