Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

নোয়াখালী কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা, ভূঁঞারহাট বাজারের ব্যবসায়ী সেলিম উদ্দিন বাবুলের অন্তঃসত্বা মেয়েকে বর্বরোচিত নির্যাতন করে তার গর্ভের সন্তান হত্যাকারী ও তাদের মদদদাতাদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসি ও বাজারের ব্যাবসায়ীরা।

বুধবার (৩ নবেম্বর) দুপুর ১২টায় বাটইয়া ইউনিয়নের সচেতন নাগরিক সমাজ ও ব্যবসায়ীবৃন্দের আয়োজনে ভূঁঞারহাট বাজারের জিরো পয়েন্টে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

 

মানববন্ধনে অন্তঃসত্বা মেয়েকে বর্বরোচিত নির্যাতন করে তার গর্ভের সন্তান হত্যাকারী ও তাদের মদদদাতাদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির দাবী জানান এলাকাবাসি ও বাজারের ব্যাবসায়ীরা।

 

মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন এলাকাবাসি ও বাজারের ব্যাবসায়ীরা। বিক্ষোভ মিছিল থেকে অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবী জানানো হয়।

 

উল্লেখ্য গত ৩০ অক্টোবর রাত পৌনে ৭টার দিকে কবিরহাট থানাধীন রামদি সাকিনস্থ বাদীর বসত ঘরের সামনে থাকা উঠানে জিয়াউর রহমান দোকানে যাওয়ার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আসামীগণ পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গালমন্দ করিয়া ক্ষিপ্ত হইয়া পূর্ব শত্রুতার জেরধরে তার হামলা করে মারধর শুরু করে। তার চিৎকারে পরিবারের লোকজন আগাইয়া গেলে আসামীদের কবল হইতে জখমী অবস্থায় তাকে বাহির করে আনার সময় অভিযুক্তরা তাদের পিছু পিছু আসিয়া লাঠি রড ও ছেলা কাঠ অন্যদের উপরও হামলা চালায়। এতে করে অন্তস্ত¡া বিবি কুলসুম পলি (২১) সহ ৬/৭ জন মারাত্বক আহত হয়। পরে আহত অবস্থায় এলাকাবাসি তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। নোয়াখালী ২৫০ শয্য জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ নবেম্বর রাত ৯টায় অন্তসত্বা নারীর গর্ভের সন্তান মৃত প্রসভ করেন। আহত বাকিরা এখনো হাসপাতলে চিকিৎসাধীন আছেন।

 

এঘটনায় অন্তসত্বা নারীর মা সাফিয়া আক্তার বাদী হয়ে ৪জনের নাম উল্লেখ করে গত ১ নবেম্বর কবিরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

 

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) টমাস বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে। অতিদ্রুতই আসমীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Sharing is caring!