Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ইউসুফ আলী (৩৪) নামের নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারের এক কমিউনিটি সেন্টারের ম্যানেজারের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে গত পাঁচ দিনে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক নারী ও এক মাদ্রাসা ছাত্রীসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

 

রবিবার রাত ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ইউসুফ আলীর মৃত্যু হয়। মৃত ইউসুফ চৌমুহনী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড হাজীপুর এলাকার নূর মোহাম্মদের ছেলে। তিনি চৌমুহনীর গোলাবাড়িয়া সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারের ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

 

জানা গেছে, রবিবার বিকালে সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয় ইউসুফ। তার শরীরে পরীক্ষা করে দেখা যায় তার ফুসফুসের অবস্থা খুব খারাপ। পরে তাকে দ্রুত ঢাকায় কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। কিন্তু তার পরিবারের লোকজন তাকে না নিয়ে হাসপাতালেই রাখেন। পরে রাত ১০টার দিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

 

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) সৈয়দ মহি উদ্দিন আবদুল আজিম জানান, তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট আসলে জানা যাবে তার করোনা ছিল কিনা। তবে তার শরীরে করোনা উপসর্গ ছিল।

 

উল্লেখ, ইউসুফ ছাড়া গত পাঁচ দিনে জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরও দুই জন। গত ৩০এপ্রিল বুধবার সকালে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান নোয়াখালীর সদর উপজেলার করমুল্যা এলাকার বাসিন্দা রোকসানা আক্তার (১৭)। ৩মে রবিবার সকালে সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নে নানার বাড়িতে মারা গেছেন মাদ্রাসা ছাত্রী সামিয়া আক্তার (১৩)। তার বাড়ী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার লাউতলি গ্রামে।

Sharing is caring!