শিরোনাম:
চকলেটের প্রলোভনে সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা ১০ মাসে নিজ হাতে কোরআন লিখলেন ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী নুদার থানায় তরুণকে পেটানোর অভিযোগে এসআই ক্লোজড খৎনার সময় শিশুর লিঙ্গ কেটে পড়ল মাটিতে: গ্রেপ্তার খৎনাকারী জমকালো আয়োজনে হাতিয়ায় শেখ রাসেল গোল্ড কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত বীমা দিবসে চাটার্ড লাইফ ইন্সুইরেন্স কোম্পানির বর্ণাঢ্য র‍্যালী ও আলোচনা সভা গাছের ডাল কাঁটতে গিয়ে পড়ে আহত, ৩য় পক্ষের সার্থে আদালতে মিথ্যা মামলা, হয়রানির শিকার ৭ নিরিহ ব্যাক্তি ঢাকার বেইলি রোডের আগ্নিকান্ড, নোয়াখালীর ৪জনের মৃত্যু, মা ও দুই ছেলের দাফন সম্পন্ন খৎনার সময় শিশুর লিঙ্গ কেটে মাটিতে ফেললেন হাজাম অভাবের তাড়নায় আত্মহত্যা করল বৃদ্ধ

নোয়াখালীতে প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে জেলা যৌন হয়রানি র্নিমূলকরণ নেটওয়ার্কের তীব্র নিন্দা

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০

নোয়াখালী প্রতিনিধি::

 

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার চরএলাহি ইউনিয়নে মানসিক প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে (১৮) ধর্ষণের অভিযোগে ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৮, তারিখ ২৩/০৭/২০২০ইং। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত প্রবাসী যুবক শিপন (২২) পলাতক রয়েছেন। অভিযুক্ত শিপন একই উপজেলার একই ইউনিয়নের চরযাত্রা গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে।

নেটওয়ার্ক নেতৃবৃন্দ জানান, অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ওই কিশোরী তার পালক পিতার সাথে কোম্পানিগঞ্জের চরএলাহীতে থাকতো। মানসিক প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী গত ২০ জুলাই সোমবার বিকাল ৪ঃ০০ ঘটিকার সময় চরযাত্রাগ্রামের স্থানীয় একটি চা দোকান থেকে নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল। কিছু পথ যাওয়ার পর প্রবাসী শিপন তার পথ রোধ করে এবং কৌশলে পার্শ্ববর্তী একটি মাছের প্রজেক্টের পিছনে একটি নির্যন স্থানে নিয়ে কিশোরীকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ২২ জুলাই রাতে ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে শিপন কে আসামি করে কোম্পানিগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

কোম্পানিগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ রবিউল হক জানান, মানসিক প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী কে ধর্ষণের অভিযোগে শিপন নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই কিশোরীর ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত যুবক কে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

নোয়াখালীতে মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণসহ ক্রমবর্ধমান নারী-শিশু ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় জেলা যৌন হয়রানি নির্মূলকরণ নেটওয়ার্কের আহ্বায়ক ও নোয়াখালী জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবুল কাসেম ও যুগ্ন আহ্বায়ক এবিএম আবদুল আলীম সহ নেটওয়ার্ক নেতৃবৃন্দ এক যুক্ত বিবৃতিতে তীব্র প্রতিবাদ ও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। একই সাথে নেতৃবৃন্দ ঘটনার সাথে জড়িত অপরাধীদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

আবুল কাসেম
আহ্বায়ক
জেলা যৌন হয়রানি নির্মূলকরণ নেটওয়ার্ক, নোয়াখালী।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১