Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ
নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আব্দুল মান্নান (৫৫) নামের এক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। হামলায় আহত হয়েছে অন্তত আরও ৫জন। ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে এক ইউপি সদস্যসহ ৩জনকে আটক করেছে।
বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। নিহত আব্দুল মান্নান ৪নং ওয়ার্ড পশ্চিম চরজব্বর গ্রামের মজিবুল হকের ছেলে। তিনি স্থানীয় কাঞ্চন বাজারের ব্যবসা করতেন। আটককৃতরা হচ্ছেন, ৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য বাহার মেম্বার, একই এলাকার ইউছুফ ও আল আমিন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত এক-দেড়মাস আগে আব্দুল মান্নানের একটি গরু তার প্রতিবেশী ফজলুল হকের বাড়ীতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে তাদের উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবির্তক ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়। পরবর্তীতে ঘটনায় ২০জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ফজলুল হক। মামলায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
নিহতের ছেলে নিজাম উদ্দিন রাছেল অভিযোগ করে বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ফজলুল হকের দায়ের করা মামলায় আমাদের দুইজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অপর ১৮জন আসামী আদালতে গিয়ে আত্মসমপর্ণ করেন। গ্রেপ্তারকৃত দুই আসামী জামিনে আসার পর ৬আগস্ট বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির হওয়ার তারিখ ছিল। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ৫আগস্ট বুধবার রাত ৮টার দিকে ফজলুল হক, বাহার মেম্বার, রোকন, আইয়ুব আলী, ইউছুফ ও আল আমিনসহ ১৫-২০জন সন্ত্রাসী কাঞ্চন বাজারে আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। এসময় তারা বাজারে থাকা আমার বাবা আব্দুল মান্নান, চাচাতো ভাই আবুল কাশেম, রাছেল ও হেলালসহ ৬জনকে পিটিয়ে এবং কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে বাজারের লোকজনের সহযোগিতায় তাদের উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১০টার দিকে মাইজদী ইনসাফ প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল মান্নানকে মৃত ঘোষণা করেন। অপর আহতদের মধ্যে তিনজন নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
নিজাম উদ্দিন রাছেল আরও অভিযোগ করে বলেন, হামলার সময় হামলারকারীরা তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভাঙচুর, মালামাল ও নগদ ২লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে।
চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহেদ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পূর্ব বিরোধ ও সংঘর্ষের ঘটনায় কিছুদিন আগে উভয় পক্ষ থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা করেছিল। আদালতে হাজিরার তারিখ নির্ধারিত হওয়ার জের ধরে বুধবার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পরপর অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলায় অভিযুক্ত আসামী যেই হোকনা কেন সকলকে গ্রেপ্তার করা হবে।

Sharing is caring!