Sharing is caring!

অনলাইন ডেস্কঃ

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শেখ হাসিনা সরকারের শিকড় এদেশের মাটির অনেক গভীরে, গুজব রটিয়ে কোনো লাভ হবে না।

শুক্রবার সকালে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের খুলনা সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।নিয়মিত আলোচনার অংশ হিসেবে নিজের সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এ মতবিনিময় সভায় যুক্ত হন ওবায়দুল কাদের।

কর্মরতদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, পদোন্নতি, পদায়নের ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠতার পাশাপাশি পারফরম্যান্সও মূল্যায়ন করা হবে। ভালো কাজ করলে পুরস্কৃত করা হবে এবং মন্দ কাজের জন্য তিরস্কারসহ চাকরিবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশে এ সপ্তাহে করোনার নমুনা পরীক্ষা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সংক্রমণের হারও বেশি দেখা যাচ্ছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নুতন করে করোনার সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। তাই মাস্ক পরিধানসহ সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের শৈথিল্য দেখালে চলবে না।

এবারের ঈদযাত্রায় ফেরিঘাটের সমস্যা এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ছাড়া অন্যান্য সব মহাসড়কে ভ্রমণ স্বস্তিদায়ক ছিল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, একটি অশুভ চক্র নানা ইস্যুতে গুজব রটনা ও অপপ্রচারে লিপ্ত। সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনাকে ঘিরে কেউ কেউ দুই বাহিনীর মধ্যে উস্কানি দেওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

জনগণ এ বিষয়ে সচেতন রয়েছে। এ ধরনের ঘটনাকে ইস্যু করে সরকার হটানোর মতো দিবাস্বপ্ন দেখছে কেউ কেউ। সিনহা হত্যার ঘটনা তদন্তে সরকার অত্যন্ত আন্তরিক৷ এরই মধ্যে আইনগত প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে তদন্ত কমিটি কাজ করছে। এ ঘটনায় এরই মধ্যে অনেককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গুজব রটনা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার বন্ধে দেশ-বিদেশে সংশ্লিষ্টদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সরকার তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে যে কোনো বিষয় সুরাহা করবে।

Sharing is caring!