Sharing is caring!

সেনবাগ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের (খন্দকার সিএনজি) পাম্পের আশে-পাশে আশংকা জনক হারে চুরি-ডাকাতি বৃদ্ধি পেয়েছে। গত কিছু দিন থেকে কোন না কোন বাড়িতে চুরি সংঘটিত হচ্ছে।

কিছু দিন পূর্বে ঠাকুর বাড়িতে পর পর কয়েক বার চুরি হয়েছে। এর পর তাজু মিয়া ও হাবিবের সিএনজি অটো চুরি, তারপর কলিম উদ্দিন হাজী বাড়িতে চুরি, তিনপুকুরিয়া আব্দুর রহমান মিয়ার গরু চুরি, তেলী বাড়ির ফার্মে চুরি হয়েছে।সর্বশেষ গতকাল সন্ধ্যায় রিয়াজ মিয়ার নতুন বাড়িতে একটা দূধর্ষ চুরি সংঘটিত হয়েছে।রিয়াজ মিয়া জানান মাগরিবের নামাজের পর তারা পাশের আত্মীয় বাড়িতে যায় এবং রাত নয়টায় ফিরে এসে দেখে ঘরের দরজা ভাঙ্গা, আলমারি ও ওভার ড্রয়ার ভাঙ্গা।

তাদের শোর চিৎকার শোনে আশে পাশের লোকজন এসে দেখে ঘরের সকল জিনিস পত্র তছনছ অবস্থায় রয়েছে। রিয়াজ মিয়া জানান তার কমপক্ষে ৪/৫ ভরি স্বর্ণ অলংকার, নগদ ১০/১২ হাজার টাকা সহ অনেক মূল্যবান জিনিস পত্র নিয়ে যায় চোরের দল।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায় এসব চুরির ঘটনার সাথে এলাকার কিছু চিহ্নিত বখাটে ও মাদক সেবী জড়িত। আশে পাশের কয়েকটি চা দোকানে এরা সারা দিন আড্ডা দেয় আর রাতের বেলায় বিভিন্ন ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত হয়। প্রশাসন একটু তৎপর হলেই এসব অপরাধ বন্ধ করা সম্ভব হবে।

Sharing is caring!