Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ ও খাগড়াছড়িতে মানসিক ভারসাম্যহীন আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের কর্মসূচী হিসেবে নোয়াখালীতে ছাত্রদলের সমাবেশ অনুষ্পুঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে পুলিশি হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে জেলা বিএনপি।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলা শহর মাইজদীর রশিদ কলোনীস্থ কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহাজাহানের বাসভবনে জেলা বিএনপি এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে অতি দ্রুত গ্রেফতারকৃত ছাত্রদল নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি এবং রাজনৈতিক হয়রানির উদ্দেশ্য দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসির সভাপতিত্বে লিখিত বক্তব্যে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান মো. নোমান জানান, সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগ কতৃর্ক স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ ও খাগড়াছড়িতে মানসিক ভারসাম্যহীন আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের কর্মসূচী হিসেবে আমরা জেলা ছাত্রদল বিক্ষোভ মিছিল আয়োজন শেষে পৌর বাজারের সামনে সমাবেশ করছিলাম।

এসময় পুলিশ বিনাউস্কানিতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে হামলা চালিয়ে ১৮ জনকে আহত করে। ছাত্রদলের ৮জন নেতাকর্মীকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে রাজনৈতিক হয়রানির উদ্দেশ্যে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখুকে প্রধান আসামি করে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সলিমুল্লা বাহার হিরণ, পৌর বিএনপির সভাপতি আবু নাছের, জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি ছাবের আহম্মেদ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখু প্রমুখ।

বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ দেশের চলমান অরাজক পরিস্থিতিতে ধর্ষণে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ও ধর্ষণের শাস্তির দাবিতে আয়োজিত কর্মসূচীতে পুলিশি হামলার তীব্র নিন্দা এবং নিরপরাধ গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

Sharing is caring!