Sharing is caring!

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের পরে সাধারণ সম্পাদক পদকে ঘিরে অভিনেত্রী নিপুণ ও চিত্রনায় জায়েদ খানের বিতর্ক চলছেই। গত ২৮ জানুয়ারি এবারের নির্বাচনটি হয়। নির্বাচনের ভোট ছিল চারশরও কম, তারপরও পরদিন সকালে ২৯ জানুয়ারি নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হয়। সাধারণ সম্পাদক পদে ১৩ ভোটে জয়ী হন জায়েদ খান। পরাজিত প্রার্থী নিপুণ আক্তার পুনরায় ভোট গণনা করার আবেদন জানান। সেখানেও জয় পান জায়েদ। এরপর তার বিরুদ্ধে ভোট কেনার অভিযোগ তুলে আপিল করেন নিপুণ। সুরাহা না হওয়ায় বিষয়টি আদলত পর্যন্ত গড়ায়।

এবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচনের বিষয়টি নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করলেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম। সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্টে তিনি জায়েদ খান আর নিপুণের বিয়ে দেওয়ার দাবি জানান!

ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নিয়ে এক লাইন লেখার রুচি নাই। তবুও আজকে আর না লিখে পারলাম না। ’ ‘জায়েদ খান আর নিপুণের বিয়ে দিয়ে দেওয়া হোক। কারণ তারা দু’জনই বর্তমানে সিঙ্গেল। বিয়ের সমাধান ছাড়া রাশিয়ার প্রেসিডন্ট পুতিনও এই সমস্যার সমাধান করতে পারবে না। অসহ্য……’-যোগ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ৫ ফেব্রুয়ারি জায়েদ খানের প্রার্থিতা বাতিল করে নিপুণকে শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করে নির্বাচনি আপিল বোর্ড। এফডিসিতে ডাকা এক সভা শেষে এ ঘোষণা দেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান সোহানুর রহমান সোহান। নির্বাচনি আচরণবিধি না মানায় জায়েদ খানের সাধারণ সম্পাদক পদ বাতিল করা হয়। ফলে তার পরিবর্তে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চিত্রনায়িকা নিপুণকে এ পদে জয়ী দেখানো হয়।

Sharing is caring!