Sharing is caring!

এনকে বার্তা ডেস্ক::

দেশের করোনা পরিস্থিতির কারণে দুইমাস বন্ধ ছিল সব ধরনের শুটিং। এবার দেশব্যাপী কার্যত লকডাউনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামীকাল ৩১ মে। আর এরইমধ্য দিয়ে আগামী ১লা জুন থেকে শুরু হতে যাচ্ছে নাটকের শুটিং।

টিভি নাটকের ১৯ সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত আন্তঃসংগঠন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটা জানানো হয়েছে।

সেই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ৩১ মে থেকে সরকারি অফিস, আদালত, গণপরিবহন খুলে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের পর শর্তসাপেক্ষে স্বাস্থ্য বিধি মেনে টিভি নাটকে শুটিং শুরু করছে সংগঠনগুলো।

এর আগে ১৭ মে ৬ শর্ত মেনে নিজ দায়িত্বে টিভি নাটকের শুটিং শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো টিভি নাটকের শীর্ষ সংগঠনগুলো। যদিও শুটিং শুরুর একদিন পরই নিজের মধ্যে মতের মিল না হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে তারা।

১ জুন থেকে শুটিং শুরুর যে ৪ শর্ত দেওয়া হয়েছে তা হলোঃ

১. করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সামনের দিনগুলোতে আরও ভয়াবহ অবস্থা হবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। আন্তঃসংগঠন ও শুটিং করার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করছেন। তবে যাদের কাজ করা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে তারা সাময়িকভাবে জীবন-জীবিকা চলমান রাখার স্বার্থে আন্তঃসংগঠনের দেওয়া স্বাস্থ্য বিধি মেনে যদি কেউ শুটিং কার্যক্রমে নিজ দায়িত্বে অংশ নিতে চান তাহলে তিনি তা করতে পারবেন।

২. সংশ্লিষ্ট ইউনিট শুটিং শুরু করার আগেই পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা ছাড়াও স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে শুটিং কার্যক্রম শুরু করবেন। এ ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা সৃষ্টি হলে সংশ্লিষ্ট শুটিং ইউনিটকে তার সম্পূর্ণ দায় বহন করতে হবে।

৩. প্রতিটি শুটিং ইউনিটের শিল্পী-কলাকুশলী প্রাথমিকভাবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখবেন। সমস্যা দেখা দিলে প্রযোজনা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সহায়তা নিয়ে তারা তা নিজ উদ্যোগে সমাধান করবেন।

৪. এই ঘোষণা সরকারের ছুটি ও লকডাউন বিষয়ক ঘোষণার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। পরিস্থিতি বিবেচনায় শুটিং কার্যক্রম যে কোনো সময় স্থগিত অথবা সম্পূর্ণ ভাবে বাতিল হতে পারে।

এর আগে ২২ মার্চ থেকে দেশের করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় টিভি নাটকের শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় টিভি নাটকের আন্তঃসংগঠনগুলো।

Sharing is caring!