Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

 

নোয়াখালী চাটখিলে পথরোধ করে এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের সময় সিএনজি চালিত অটোরিকশাসহ অপহরণকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

আটককৃত, অহরণকারী দলের সদস্য সিএনজি চালক সেলিম (২৬), সে লক্ষীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ উপজেলার লতীফপুর গ্রামের আবদুর রহীমের ছেলে। এ সময় অপহরণকারী চক্রের আরো ৩ সদস্য পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

(২৯ এপ্রিল) বৃহস্পতিবার সকালে খিলপাড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবাল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার খিলপাড়া ইউনিয়নের খিলপাড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় অপহরণ চেষ্টার এ ঘটনা ঘটে। এ সময় অপহরণকারীদের হেফাজত থেকে অপহৃত খিলপাড়া বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলামকে (৪৫), আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

অহরণকারী দলের সদস্যরা হলো, লক্ষীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ উপজেলার সবুজ, রায়হান, কাউচার ও সেলিম।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে, চাটখিল উপজেলার খিলপাড়া বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী শহীদ উল্যাহ রাত সাড়ে ৮টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়ি যাচ্ছিলেন। এ সময় অপহরণকারীরা খিলপাড়া বড় মসজিদের সামনে থেকে সিএনজি দিয়ে শহীদ উল্যাহকে পথরোধ করে তুলে নিয়ে লক্ষীপুর জেলার দিকে যাওয়ার চেষ্টা করেন। শহীদ উল্যাহকে জোরপূর্বক সিএনজিতে তোলার ঘটনা দেখতে পেয়ে স্থানীয় তসলিম মাহমুদ, ইসমাইল হোসেন ইপ্তি ও রাশেদুল ইসলাম রাশু অপহরণকারীদের পিছে ধাওয়া করেন। রাত পৌনে ৯টার দিকে খিলপাড়া বাজার এলাকার লোকজন লক্ষীপুর বর্ডারে ব্যারিকেড দিয়ে অপহরণকারী দলের এক সদস্যকে সিএনজিসহ আটক করেন। তবে এ সময় অপহরণকারী চক্রের আরো ৩ সদস্য পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালীর খিলপাড়া বাজার,লক্ষীপুর জেলার সীমান্তবর্তী হওয়ায়, দুই জেলার মাদক কারবারি, সন্ত্রাসী ও অস্ত্রধারীদের মধ্যে রয়েছে সখ্যতা। খিলপাড়ার কতিপয় সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীর ইন্ধনে এ ঘটনাটি ঘটে বলে দাবি করেন তারা।

খিলপাড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবাল হোসেন জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অপহরণ আইনে মামলা হয়েছে। আটক আসামিকে অপহরণ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে দুপুরের দিকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে পুলিশ পরবর্তীতে আইনগত প্রদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

Sharing is caring!