Sharing is caring!

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীতে ভাবিকে উত্তপ্ত করার প্রতিবাদে দেবরের উপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ৫জন আহত হয়েছে। ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতদেরকে নোয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।আহতরা হলেন- মোঃ রিয়াজ উদ্দিন (জখমী), মোঃ সুজন উদ্দিন (জখমী), শিউলী বেগম, নয়ন বেগমসহ ৫জন।

রবিবার রাতে সদর উপজেলার ১৯ নং চরমটুয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ চরকাউনিয়া গ্রামে চাঁন মিয়ার বাড়ীতে এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পারিবারের সদস্যরা জানায়, ওমান প্রবাসী মোঃ সুমনের স্ত্রী শিউলী বেগমকে পাশের বাড়ীর বখাটে ও মাদকাসক্ত সুমন ও সাজু বিভিন্ন সময়ে অশালীন কথাবার্তা ও অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। শিউলী বেগম তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে কম্পিউটারে নোংরা ছবি তৈরী করে সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়ে পারিবারিক ও সামাজিক ভাবে সম্মান নষ্ট করবে বলে হুমকী দেয়। বিষয়টি শিউলী বেগম তার স্বামী সুমনকে জানায়। প্রবাসী সুমন বিষয়টি আত্মীয় স্বজন দিকে সাজু ও সুমনের পরিবারকে জানায়। এতে করে সুমন, সাজু শিউলী বেগমের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে রবিবার সন্ধ্যা ৭টার সময় অপরাপর সহযোগি গিয়াস উদ্দিন, রাজু, আকবর হোসেন, রায়হানসহ বহিরাগত ১০/১৫ জন যুবক নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেশীয় রড, চেনি, রামদা, কিরিজ নিয়ে চাঁন মিয়ার বাড়ীতে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালায়। এসয় তারা শিউলী বেগমসহ তার দেবর মোঃ রিয়াজ উদ্দিন, মোঃ সুমন, নয়ন বেগমকে এলোপাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে গুরুতর জগম করে। আহতদের চিৎকারের আওয়াজ শুনে আশপাশের লোকজন দৌড়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন আহতদেরকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। এঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান, শিউলী বেগমের মামা শশুর মোঃ আলাউদ্দিন।

এব্যাপারে সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নবীর হোসেন জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। ভুক্তভোগী পরিবার মামলা করলে তদন্ত সাপক্ষে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

Sharing is caring!