Sharing is caring!

এনকে বার্তা ডেস্ক:

 

বাংলাদেশে করোনার সংক্রমণ ক্রমাগত বাড়ছেই। গেল ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে দেশে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ১০৩৪ জনের শরীরে। এ নিয়ে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫৬৯১ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রেকর্ড ১১ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে ৫ জন পুরুষ ও নারী ৬ জন। এ নিয়ে প্রাণঘাতি এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২৩৯ জনে দাঁড়াল।

আজ সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান।

তিনি নতুন সংযুক্ত একটিসহ মোট ৩৭টি ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সাত হাজার ২৬৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় সাত হাজার ২০৮টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো এক লাখ ২৯ হাজার ৮৬৫টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় আরও এক হাজার ৩৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এটি ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৬৯১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ১১ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ২৩৯-এ। আর গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ২৫২ জন। সব মিলিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন দুই হাজার ৯০২ জন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণ করে দেখা যায়:

৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী: ১ জন

৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সী: ১ জন

৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী: ৪ জন

৪১-৫০ বছর বয়সী: ২ জন

৩১-৪০ বছর বয়সী: ২ জন

২১-৩০ বছর বয়সী: ১ জন

শনাক্ত ও মৃত্যুর দিক থেকে সারাদেশের মধ্যে এখনো এগিয়ে আছে রাজধানী ঢাকা।

এক নজরে বাংলাদেশের করোনাচিত্র:

মোট নমুনা পরীক্ষা: ১ লাখ ২৯ হাজার ৮৬৫টি।
মোট আক্রান্ত: ১৫ হাজার ৬৯১ জন।
মারা গেছেন : ২৩৯ জন।
মোট সুস্থ: ২ হাজার ৯০২ জন।
করোনাভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য সরকার ইতোমধ্যেই একটি বিশেষ ওয়েবসাইট (www.corona.gov.bd) চালু করেছে।

এদিকে, ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, সোমবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা পর্যন্ত বৈশ্বিক এ মহামারিতে সারা পৃথিবীতে ৪১ লাখ ৮১ হাজার ৩০৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ১৪ লাখ ৯৩ হাজার ৫৩৪ জন সুস্থ হয়ে উঠলেও প্রাণ গেছে ২ লাখ ৮৩ হাজার ৮৭৮ জনের।

সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যেসব দেশে:

যুক্তরাষ্ট্র: ৮০ হাজার ৭৮৭ জন।
যুক্তরাজ্য: ৩১ হাজার ৮৫৫ জন।
ইতালি: ৩০ হাজার ৫৬০ জন।
স্পেন: ২৬ হাজার ৬২১ জন।
ফ্রান্স: ২৬ হাজার ৩৮০ জন।
ব্রাজিল: ১১ হাজার ১২৩ জন।
বেলজিয়াম: ৮ হাজার ৬৫৬ জন।
জার্মানি: ৭ হাজার ৫৬৯ জন।
ইরান: ৬ হাজার ৬৪০ জন।
নেদারল্যান্ডস: ৫ হাজার ৪৪০ জন।

Sharing is caring!